ঝটপট মুরগী

আজ রবিবার, চলে এলাম রান্নাবান্না নিয়ে। আসলে প্রতিদিনের মেনু ঠিক করে সেটাকে রূপদান করাটা সবচেয়ে কঠিন কাজ একজন রাঁধুনির পক্ষে,তিনি পুরুষ হতে পারেন তিনি একজন মহিলা হতে পারেন,কিন্তু যিনি এই কাজটা করেন একমাত্র তিনিই জানেন এর কীইইই মহিমা।একই রান্না রোজ যেমন ভালো লাগে না ঠিক সেভাবেই রান্নায় প্রতিদিন ফিউশন ক্রিয়েট করলে নস্টালজিয়ায় আঘাত আসে।এই ধরুন, ছোট থেকে আপনি পছন্দ করেন মৌরলা মাছের টক খেতে অথচ নতুনত্ব কিছু করার নামে রোজই আপনার রান্নাঘরে সজ্জিত হচ্ছেন সাহেব মেম।


তাই একদিন চলুন সব রেসিপিবই বন্ধ করে দিই,অফলাইন হয়ে যাই ইউটিউব থেকে।রাতে চুপচাপ শুয়ে ভাবি ছোটবেলায় কোন খাবার কিভাবে আমাদের মা ঠাম্মা বা পিসি জ্যেঠিরা করে করে খাওয়াতেন


আজ আমি তেমনই একটা চিকেন প্রিপারেশন করেছি যেটা একসময় আমার মেজো মাসীর শ্বশুর রান্না করতেন,আজ দুপুরে পরিবারের সকলে যখন খাচ্ছিল আমি ভেসে যাচ্ছিলাম ফেলে আসা নব্বইয়ের দশকে


এক কেজি মুরগির মাংস চার চামচ পেঁয়াজ বাটা এক চামচ রসুনবাটা আধ চামচ আদা বাটা, কাঁচালঙ্কাবাটা সাদাতিল পোস্ত চারমগজ কাজুবাদাম কিসমিস একসাথে অল্প দুধ দিয়ে বাটা...এই সমস্ত উপকরণ একসাথে মেখে ঘন্টা দুয়েক ম্যারিনেট করে রেখে এরপর কড়াইয়ে রিফাইন্ড অয়েল আর বাটার দিয়ে গরম হলে এলাচ দারচিনি লবঙ্গ তেজপাতা ফোড়ন দিয়ে মেখে রাখা মাংস দিয়ে অল্প আঁচে কষাতে থাকলেই মাত্র কুড়ি মিনিটে তৈরি হয়ে যায় ঝটপট চিকেন


গরম ভাত বা রুটি পরোটা লাচ্ছা... সবকিছুর সাথে দুপুর বা রাতে পারফেক্ট জুটি এই ঝটপট চিকেন


448 views0 comments

Recent Posts

See All

রবিবারের সন্ধে। পরিবারের সকলের মুখে হাসি। গল্পগাছা আর আড্ডাবাজি। সাথে যদি থাকে মুচমুচে সুস্বাদু স্বাস্থ্যকর এই স্ন্যাকস তাহলে জমজমাট হয়ে যায় প্রতিটি মুহূর্ত। ঘরে অনেকদিন মিইয়ে পড়ে থাকা বালিতে ভাজা কিছ