বাংলা ক্যানভাস রান্নাঘরঃ মুচমুচে স্বাস্থ্যকর ছোলাটিক্কি


রবিবারের সন্ধে। পরিবারের সকলের মুখে হাসি। গল্পগাছা আর আড্ডাবাজি। সাথে যদি থাকে মুচমুচে সুস্বাদু স্বাস্থ্যকর এই স্ন্যাকস তাহলে জমজমাট হয়ে যায় প্রতিটি মুহূর্ত।

ঘরে অনেকদিন মিইয়ে পড়ে থাকা বালিতে ভাজা কিছু ছোলা। কায়দা করে সদগতি করেছিলাম এই রেসিপি বানিয়ে ।

ছোলা মিক্সিতে ঘুরিয়ে ১০-১২ সেকেন্ড করে দু'বার। হ্যাঁ দুবার। তাতে মিহি করে কুচোনো পেঁয়াজ, অল্প কয়েক কোয়া রসুন, গ্রেটেড গাজর এবং বিন (ইচ্ছে মত অন্য সবজিও দেয়া যায়), কাঁচালংকা আর ধনেপাতা কুচি,পরিমাণ মত নুন, কয়েকদানা চিনি।এবার সামান্য জোয়ান, ড্রাইরোস্ট সাদা জিরে আর এক চিমটি গোলমরিচগুঁড়ো এবং দু'চামচ ব্যাসন। এক পিঞ্চ বেকিং সোডা। জোয়ান জিরে গোলমরিচ ওয়েটলস স্টেজে খুব ভালো কাজ করে। এবার একটা বড় বাটিতে নিয়ে সব উপকরণ একত্র করে নরম হাতে মেখে ফেলুন।

ননস্টিক প্যান ।ওয়ান কিউব বাটার ।মেল্ট হলে অয়েলব্রাশের সাহায্যে ছড়িয়ে দিন প্যানের গোটা সারফেস জুড়ে। হাতের দুই তালু জল নিয়ে স্যাঁতসেঁতে করে নিন,মেখে রাখা মিশ্রণ থেকে পাঁচ আঙুলে ওঠে যতটা ততটা পরিমান নিয়ে একটু চ্যাপ্টা আকৃতিতে গড়ে প্যানে দিন।আঁচ থাকবে মাঝারি। ঢাকনা দিন,তিন মিনিট, উল্টে নিয়ে আরও এক মিনিট।

এরপরের স্টেজটা 'ডাকাতিয়া বাঁশি'র মত। আরে না না, চুরি ডাকাতি করতে বলব না আপনাদের। টিকিয়াগুলো একটা একটা করে একটা সাঁড়াশিতে চিপকে ধরে ডাইরেক্ট আগুনে।হালকা পোড়া পোড়া সেঁকা সেঁকা হলেই তৈরি 'ছোড়ি ছোলে'


টিপসঃ দু'বার মিক্সি চালান। অল্প অল্প আধভাঙ্গা করে,একেবারে এক মিনিট ঘোরালে ছোলার ছাতু হয়ে যাবে।ক্রিস্পি ভাব থাকবে না


আরেকটা টিপ শেয়ার করি। যেকোনো টিকিয়া গড়বার সময় হাতে জলের ওপর কাঠখোলায় ভাজা সুজি ছিটিয়ে নিন।শেপিং পরিপাটি দেখতে লাগবে সাথে অনেকক্ষণ মুচমুচে থাকবে।



6 views0 comments

Recent Posts

See All

কলকাতা মানেই কালী। আর তাই কালী কলকাত্তাওয়ালী। প্রচলিত এই বাক্যবন্ধই বুঝিয়ে দেয় যে কলকাতা আর কালীর সম্পর্ক কতটা প্রাচীন। কিন্তু কোথায় সেই কলকাতার কালী। জঙ্গলাকীর্ণ কলকাতায় কালীই পূজিতা। আর সেক্ষেত্রে য